কবি আসাদ উল্লাহ’র দুটি কবিতা

102

মেঘেরা মুখ ভার করে বসে থাকে

আসাদ উল্লাহ

মেঘেরা মুখ ভার করে বসে থাকে
মেঘেরা ইস্টিশনের মানুষের মতো শুয়ে থাকে!

ট্রেন আসে, হুড়োহুড়ি পড়ে যায়
আলো রোদ নিয়ে চলে যায় ট্রেন।
একদল ফর্সা মাছির নিতম্ব ফেটে পড়ছে
তবুও বুফে কারে হাসে মোগলাই পরোটা,
পথে পথে দুয়ার খুলে ভালোবাসা আকুল
ট্রেনের আওয়াজে হাসে প্রিয় নাকফুল।

কেবল মেঘেরা মুখ ভার করে বসে থাকে
মেঘেরা ইস্টিশনের মানুষের মতো শুয়ে থাকে!

শীষমহল

আসাদ উল্লাহ

অগনন শীষমহল আমাদের শহরে
মাথা উঁচিয়ে আকাশ ছুঁয়ে দাঁড়িয়ে আছে
আমরা এই শহরে আছি আর
শীষমহলগুলো ফুলে ফেঁপে উড়ছে চমৎকার নীল ছড়িয়ে।
শীষমহলগুলো যতো উপরের দিকে যায়
ততোবেশি পাতা ঝরে মাটিতে
ততোবেশি দীর্ঘ হয় মলিন শিশু আর শ্রমিকের মিছিল।

শীষমহলে শুয়রের মুখের মতো রাত নামে
পৃথিবীতে পড়ে থাকে পল্লবিত ব্যাথার বোতলে নীলের বুদবুদ,
মানুষের তাহলে কী আছে, কতোটুকু আছে?
যারা গলা চেঁচিয়ে মানবতার কথা বলে
স্বাধীনতার কথা বলে, রমনীর মুখশ্রীর কথা বলে
যারা বোমা ফাটিয়ে ধর্মের কথা বলে
শান্তি আর সৌহার্দের কথা বলে-
প্রকারান্তরে তারা শীষমহলে দুধ-কলার নিশ্চয়তার কথা বলে।

শীষমহলগুলো হাসে আর কয়েকটি ছাগল
দরজায় লেজ উঁচিয়ে করতালিতে নাচে।