ড্রেজিং এর মৃত্যুকুপ থেকে নিষ্কৃতি চায় ময়মনসিংহের মানুষেরা

87

অনিন্দ্যবাংলা ডেক্স : ময়মনসিংহে ব্রহ্মপুত্র নদে যত্রতত্র ড্রেজিং করে বালু উত্তোলনের ফলে তৈরী মৃত্যুকূপে  পড়ে এ মাসেই প্রাণ হারিয়েছেন তিনজন। অবৈধভাবে ড্রেজার ব্যবহার করে বালু উত্তোলনের ফলে এসব প্রাণহানি ঘটছে বলে পরিবেশবাদীদের দাবী। ড্রেজিং এর মৃত্যুকুপ থেকে নিষ্কৃতি চান তাঁরা।

অবৈধভাবে ড্রেজার ব্যবহার করে বালু উত্তোলনের প্রতিবাদে ১৬ এপ্রিল মঙ্গলবার ময়মনসিংহ থানাঘাট সংলগ্ন নদের পাড়ে বিক্ষুব্ধ ময়মনসিংহবাসী’র ব্যানারে মানববন্ধন করে সচেতন মানুষেরা। মানববন্ধনে ব্রহ্মপুত্রের বর্তমান অবস্থা নিয়ে গুরুত্বপুর্ণ বক্তব্যদেন বক্তারা। বক্তাগন বলেন, কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে খাগডহর পর্যন্ত ব্রহ্মপুত্র নদে ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলনের কোন নিয়ম নাই। তবু্ও অজ্ঞাত কারণে প্রশাসনের নাকের ডগায় অবৈধভাবে ড্রেজিং করে বালু উত্তোলন হচ্ছে। সুনির্দিষ্ট নিয়ম মেনে ড্রেজিং করে ব্রহ্মপুত্রকে বাঁচানোর আহবান জানান তারা।

কবি আলী ইউসুফ এর সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, পরিবেশ আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক এড শিব্বির আহমেদ লিটন, এড নজরুল ইসলাম চুন্নু, ময়মনসিংহ চেম্বার অব কমার্সের সিনিয়র সহ সভাপতি শংকর সাহা, নারীনেত্রী মনিরা বেগম অনু, সাংবাদিক প্রদীপ ভৌমিক, কবি ইয়াজদানী কোরায়শী, কবি স্বাধীন চৌধুরী। উপস্থিত ছিলেন নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলন এর জেলা শাখা সভাপতি আব্দুল কাদের চৌধুরী, কবি সনৎ ঘোষ,জিয়া রহমান, শুভ্র চক্রবর্তী, দিপক দেসহ বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন এর নেতৃবৃন্দ।

এ বিষয়ে সদরের সহকারী কমিশনার (ভূমি) মহিনুল হাসানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, জেলা প্রশাসক মহোদয়ের নির্দেশনায় প্রতি মাসেই অবৈধ বালু উত্তোলনকারীদের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় গত ৫ মাসের অভিযানে প্রায় ৩০টি অবৈধ ড্রেজার ধ্বংস ও ৩টি এসকোভেটর আটক করে সাড়ে ৪ লক্ষ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

অবৈধ বালু উত্তোলনকারীদের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি নির্ধারণ করে জেলাপ্রশাসক ড. সুভাষ চন্দ্র বিশ্বাস প্রতিমাসে ধারাবাহিক অভিযান পরিচালনার নির্দেশ দিয়েছেন। এরপরও অবৈধ কোন ড্রেজারের সন্ধান পাওয়া গেলে, তাৎক্ষনিক বিষয়টি তাকে অবহিত করা জন্য অনুরোধ জানান।