সুলতান পরিবারের ‘কুকীর্তি’ ঢাকতে ব্রুনাইয়ে শরীয়াহ আইন!

80
সুলতান পরিবারের ‘কুকীর্তি’ ঢাকতে ব্রুনাইয়ে শরীয়াহ আইন!
১৯৯৭ সালের মিস যুক্তরাষ্ট্র শ্যানন মার্কেটিক ও সুলতান হাসানাল বোলখিয়া। ছবি: সংগৃহীত।

বেপরোয়া রাজকীয় জীবনযাপন ও অনেক ক্ষেত্রে নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে একজন গডফাদার হিসেবেও পরিচিতি পেয়েছেন ব্রুনাই সুলতান হাসানাল বোলকিয়া। ২৭ বিলিয়ন ডলারেরও বেশি সম্পদের মালিক এই সুলতানের রাজপ্রাসাদেই রয়েছে একাধিক ‘হেরেম’, যেগুলোতে রয়েছে বিশ্বের নানা দেশ থেকে আনা সুন্দরী যৌনদাসীরা। এসব নিয়ে প্রকাশ হয়েছে বহু খবর, লেখা হয়েছে বই। এছাড়া ২০১৫ সালে ‘দ্য প্লেবয় সুলতান’ নামে করা হয়েছে ডকুমেন্টারি।

গত ৩ এপ্রিল থেকে দেশটির সুলতান ব্রুনাইয়ে শরীয়াহ আইন চালু করেন। সমকামী, ব্যাভিচারে মত কেউ অপরাধ করলে পাথর নিক্ষেপ করে মৃত্যুদণ্ডের আইন করা হয়।

এরপর থেকে দেশটির সুলতান বিশ্বব্যাপী খবরে শিরোনাম হয়ে ওঠে। আন্তর্জাতিক অনেক মিডিয়া দেশটির সুলতান ও তার ভাই প্রিন্স জাফরির ‘কুকীর্তির’ খবর নতুন করে প্রকাশ করে।

সম্প্রতি সিএনএনের জানায়, পরিবারের ইমেজ ফিরে আনতে ও কুকীর্তি ঢাকতে কি শরীয়াহ আইন চালু করছে দেশটি?

অনেক মানবাধিকার কর্মী জানান, নিজের কর্তৃত্বকে আরো জোরদার করতে এবং পরিবারের ভাবমূর্তি ফেরাতে সুলতানের এমন পদক্ষেপ।

জিলিয়ান লরেন একজন মার্কিন নারী। ‘সাম গার্লস: মাই লাইফ ইন আ হেরেম’ শিরোনামে একটি বই প্রকাশিত হয়েছে তাঁর। বইটিতে তিনি বর্ণনা দিয়েছেন ব্রুনাই সুলতান ও প্রিন্সের কুকীর্তির।

লরেন অভিযোগ করেছেন, প্রিন্স জাফরির হেরেমে (রাজকীয় পতিতালয়) ছিল ৪০ জন সুন্দরী নারী। তাদের একজন হিসেবে নিয়োগ পান তিনিও। সেটি ১৯৯০-এর দশকের প্রথম দিকের কথা। নিয়োগের আগে তিনি ছিলেন নিউ ইয়র্কের অষ্টাদশী এক নবাগত অভিনেত্রী।

২০১৫ সালে ‘দ্য প্লেবয় সুলতান’ শিরোনামে ৬০ মিনিটের ডকুমেন্টারিতে লরেন বলেন, প্রিন্স জাফরির সঙ্গে শত শত বার যৌনকর্মে মিলিত হয়েছেন তিনি। তা সত্ত্বেও সুলতান তাঁকে তাঁর সঙ্গে যৌনকর্মে মিলিত হতে বাধ্য করেছিলেন।

২০১৪ সালে লরেন সিএনএন-কে বলেন, ‘আমি নিজে প্রত্যক্ষদর্শী, সুলতান মদ্যপান করতেন, ব্যভিচার করতেন।’

একদিকে শরীয়াহ আইন প্রয়োগ করছেন অন্যদিকে ব্যাপক সম্পদে-ভোগবিলাসে অধঃপতিত জীবন অতিবাহিত করছেন ব্রুনাইয়ের সুলতান। তার নিজেরই প্রাইভেট জেট বিমান রয়েছে। শুধু তাই নয়, একবার তার বার্থডে পার্টিতে গান গাইতে মাইকেল জ্যাকসনকে নিয়ে আসা হয়।

পৃথিবীতে দীর্ঘ সময় ধরে ক্ষমতায় থাকা শাসকদের মধ্যে ব্রুনাইয়ের সুলতানের অবস্থান দ্বিতীয়। তার আগে, প্রথমস্থানে রয়েছেন ব্রিটেনের দ্বিতীয় এলিজাবেথ। ৫২ বছর ধরে ক্ষমতায় রয়েছেন ব্রুনাইয়ের সুলতান। তিনি তার বাবার নিকট থেকে উত্তরাধিকারসূত্রে ক্ষমতা পেয়েছেন।

ব্রুনাইয়ের জনসংখ্যা প্রায় ৪ লাখ ৩০ হাজার। তেল ও গ্যাস রপ্তানি করে সম্পদশালী হয়েছে দেশটি। কিন্তু দেশটির জনসংখ্যার একটি বিশাল অংশ দারিদ্র্যের মধ্য বসবাস করে। কিন্তু কথিত আছে, তেলসম্পদ থেকে ব্রুনাইয়ের সুলতানের প্রতি সেকেণ্ডে আয় ১৪৭ ডলার বৃদ্ধি পাচ্ছে। পৃথিবীর সবচেয়ে বড় রাজকীয় প্রাসাদে বসবাস করেন এই সুলতান যার নাম ইনস্তানা নুরুল ইমান প্যালেস।

ব্রুনাই নদীর তীরে অবস্থিতে এই রাজকীয় প্রাসাদে ১৮০০ ঘর রয়েছে। এই রাজপ্রাসাদটির বাজারমূল্য ১ দশমিক ৮ বিলিয়ন ডলার। এতে রয়েছে পাঁচটি সুইমিংপুল, কয়েকটি মসজিদ। এই প্রাসাদে রয়েছে বহু হেরেমও।

প্রাসাদের বেঙ্কুয়েট হলে ৫ সহস্রাধিক অতিথি অবস্থান করতে পারে। শুধু তাই নয়, এই রাজপ্রাসাদটি বহু সোনা ও হীরকখণ্ড দ্বারা সজ্জিত করা হয়েছে। সুলতান হাসানাল বোলখিয়ার বিলাসবহুল গাড়ির বিষয়ে অতি আসক্তি রয়েছে। তার সংগ্রহে যেসব বিলাসবহুল গাড়ি রয়েছে তার সর্বমোট মূল্য ৯ বিলিয়ন ডলার। এর মধ্যে রয়েছে রোলস রয়েস, ফেরারি, বেন্টলেস, ল্যাম্বরগিনি, অ্যাস্নট মার্টিন এবং জাগুয়ার।

তথ্যসূত্র: নিউজিল্যান্ড হেরাল্ড, নিউজ ১৮, সিএনএন, গার্ডিয়ান, বিবিসি।