১৮০টি দেশে সফটওয়্যার রফতানি করছে বাংলাদেশ

52

অনিন্দ্যবাংলা :   প্রযুক্তিতে বিশ্বে আগামী ৫ বছরে বাংলাদেশকে এগিয়ে থাকার শীর্ষে প্রতিষ্ঠিত করবই বলে মন্তব্য করেছেন ডাক টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। তিনি বলেন, ‘আমরা এমন একটা সময়ে এখন উপনীত হয়েছি যখন ডিজিটাল যন্ত্র উৎপাদনের বিষয়টি অনেক সম্ভাবনাময় হয়ে উঠেছে। বাংলাদেশ এখন ১৮০টি দেশে সফট ওয়্যার রফতানি করছে। আইওটি পণ্য আমরা সৌদি আরবে রফতানি করছি’।

বৃহস্পতিবার ২১ মার্চ ২০১৯ রাজধানীর বসুন্ধরায় আন্তর্জাতিক কনভেনশন সিটিতে তথ্যপ্রযুক্তি খাতের প্রদর্শনী বেসিস সফটএক্সপোর সমাপনী অনুষ্ঠানে এ সব কথা বলেন মন্ত্রী।

মন্ত্রী বলেন, ২০২১ সাল থেকে ২০২৩ সালের মধ্যে প্রযুক্তির বিস্ময়কর আবিষ্কার ৫জি যুগে প্রবেশের প্রস্তুতি ইতিমধ্যেই আমরা শুরু করেছি। এ সময় প্রযুক্তির বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় সফটওয়্যার ও ডিজিটাল ডিভাইস প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানসমূহের সংগঠন বেসিসসহ তথ্যপ্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ ও উদ্ভাবকদের ৫জির সঙ্গে সম্পৃক্ত প্রযুক্তি বিশেষ করে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা, রোবটিক, বিগডাটা, আইওটি ও ব্লকচেইন প্রযুক্তির ওপর নিজেদের আরও দক্ষ করে গড়ে তোলার ওপর গুরুত্বারোপ করেন টেলিযোগাযোগমন্ত্রী।

তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদৃষ্টি সম্পন্ন পরিকল্পনা তুলে ধরে বলেন, এক সময় ডিজিটাল বাংলাদেশকে নিয়ে হাস্য-তামাসা করা হতো। আজ তা পৃথিবীর অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে।

আমরা দেখিয়ে দিয়েছি বাংলাদেশ পারে! তিন দিনের বেসিস মেলায় মানুষ দেখতে পেয়েছে আমরা কোথায় পৌঁছেছি, কী করছি, কোথায় আছি উল্লেখ করেন মন্ত্রী। সমাপনী অনুষ্ঠানে দেশের প্রথম কম্পিউটার ব্যবহারকারী মোহাম্মদ মুসাকে মরণোত্তর সম্মাননা প্রদান করা হয়। পরিবারের পক্ষে তার মেয়ে এই সম্মাননা গ্রহণ করেন।

গত ১৯ মার্চ টেকনোলজি ফর প্রসপারিটি শ্লোগানের মধ্য দিয়ে শুরু হওয়া তিন দিন ব্যাপী তথ্যপ্রযুক্তি খাতের বৃহত্তর এ মেলার সমাপনী অনুষ্ঠানে বেসিস সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবির এবং সহ-সভাপতি ও সফটএক্সপো ২০১৯ এর আহবায়ক ফারহানা এ রহমান বক্তৃতা করেন।