ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করলেন নিউজিল্যান্ডের তারকা খেলোয়াড়ের মা

0
16

ক্রাইস্টচার্চের মসজিদে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন নিউজিল্যান্ডের তারকা খেলোয়াড় সনি বিল উইলিয়ামসের মা ‘লি উইলিয়ামস’।

৩৩ বছর বয়সী সনি বিল উইলিয়ামস হলেন নিউজিল্যান্ডের প্রখ্যাত রাগবি খেলোয়াড় ও পেশাদার হেভিওয়েট মুষ্টিযোদ্ধা। তিনি দুইবার রাগবি বিশ্বকাপও জেতেন। ক্রাইস্টচার্চ মসজিদে সন্ত্রাসী হামলার পর থেকেই মুসলমানদের পাশে দাঁড়িয়েছেন। তিনি কয়েক বছর আগে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন।

যুক্তরাজ্যের জনপ্রিয় সংবাদমাধ্যম ডেইলি মেইলের খবরে বলা হয়, সনি বিল উইলিয়ামসের মা ‘লি উইলিয়ামস’ ঘোষণা দিয়েছেন যে, তিনি মোহাম্মদ (সা.) ও আল্লাহকে বিশ্বাস করেছেন। ক্রাইস্টচার্চের গণহত্যার কম সময়ের মধ্যে তিনি ইসলাম গ্রহণ করলেন। একই সঙ্গে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন নিউজিল্যান্ডের আরেক রাগবি খেলোয়াড় ওফা তুঙ্গাফাসি।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সনি বিল উইলিয়ামসের পরিচিত ব্রিটিশ জাজ কণ্ঠশিল্পী জন ফন্টেইন। তিনি টুইটারে লিখেন, ‘আল্লাহু আকবার! সনি বিল উইলিয়ামসের মা ইসলাম গ্রহণ করেছেন। এছাড়া ওফা তুঙ্গাফাসিও ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন। আল্লাহ তাদের পক্ষে এটিকে সহজ করে দিন এবং তাদের জান্নাতুল ফিরদাউস দান করুন।’

ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করলেন নিউজিল্যান্ডের তারকা খেলোয়াড়ের মা

আহতদের পাশে বিশ্বকাপ জয়ী তারকা সনি বিল উইলিয়ামস। ছবি: ডেইলি মেইল

জিম্বাবুয়ে ভিত্তিক একটি মসজিদের ইমাম সাজিদ উমার মঙ্গলবার টুইট করেন। তিনি লিখেন, ‘সমস্ত প্রশংসা এক আল্লাহর জন্য। আমাদের ভাই সনি বিল উইলিয়ামসের মা ও তার বন্ধু ইসলাম গ্রহণ করেছেন। যদিও আমি দূরে থাকি; আমি সত্যি আমার ভাইয়ের জন্য সন্তুষ্ট। আল্লাহ তাকে সম্মানিত করেছেন।’

গত শনিবার নিউজিল্যান্ডের একটি হাসপাতালে আহতদের দেখতে গিয়ে ইসলামের প্রতি আকৃষ্ট হন ওফা তুঙ্গাফাসি। পরে তিনি ইসলাম গ্রহণ করেন। একই দিন সনি বিল উইলিয়ামসের মা ইসলাম গ্রহণ করেন।

ওফা বলেন, ‘হাসপাতালে মুসলিম ভাইদের দেখার অভিজ্ঞতা ছিল অন্যরকম। আমি তাদের থেকে অনুপ্রাণিত হয়েছি।’

গত ১৫ মার্চ ক্রাইস্টচার্চের দুই মসজিদে অস্ট্রেলিয়ার শ্বেতাঙ্গ এক জঙ্গির বর্বরোচিত হামলায় ৫০ জন মুসলিম নিহত হন। এ নিয়ে সারা বিশ্বে শোকের ছায়া নেমে আসে। ওই হামলার পর শুক্রবার নিউজিল্যান্ডে বিশাল জুমার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়।

ঘটনার পর বিশ্বকাপ জয়ী সনি বিল উইলিয়ামস সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লেখেন, ‘আমি খবরটি যখন শুনি, তখন খুবই কষ্ট পাই। সে সময় আমার অনুভূতি কতটুকু কষ্টদায়ক ছিল তা শব্দ দিয়ে বুঝাতে পারবো না।’

তথ্যসূত্র :  ইত্তেফাক/জেডএইচ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here