গৌরীপুর রেলস্টেশনে হচ্ছেটা কি ?

0
17

অনিন্দ্যবাংলা :  গৌরীপুর রেলস্টেশনে অতিরিক্ত ভাড়া নেয়ার প্রতিবাদ করায় পিটিয়ে মোখলেছুর রহমান মোখলেছ (৫৬) নামে এক বৃদ্ধ ট্রেনযাত্রীকে পিটিয়ে রক্তাক্ত করেছেন টিকিট বিক্রেতা মনিরুজ্জামান বিপ্লব। ঘটনাটি ঘটেছে গত সোমবার গৌরীপুর রেলওয়ে স্টেশনে।  বেসরকারি বলাকা ট্রেনের টিকিট বিক্রেতা মনিরুজ্জামান বিপ্লব ওই বৃদ্ধের ওপর হামলা চালায়। আহত যাত্রী গৌরীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন আছেন। ঘটনার পর থেকে টিকিট বিক্রেতা বিপ্লব পলাতক রয়েছে পুলিশ সূত্র নিশ্চিত করেন।

যাত্রীদের অভিযোগ, বিপ্লবের নেতৃত্বে কাউন্টারে প্রকাশ্যেই দ্বিগুণ মূল্যে টিকিট বিক্রি করেন। রেলওয়ের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ কখনো তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়নি। বরং বারবর যারা অভিযোগ করেছে তার নাজেহালের শিকার হয়েছে। মারধরের শিকার মোখলেছুর রহমান অবসরপ্রাপ্ত পোস্টমাস্টার। তার বাড়ি গৌরীপুর উপজেলার সহনাটি ইউনিয়নের ধোপাজাঙ্গালিয় গ্রামে। স্থানীয় ও স্টেশন সূত্রে জানা গেছে, জয়দেবপুর যাওয়ার জন্য বলাকা এক্সপ্রেস ট্রেনের টিকিট সংগ্রহ করতে সোমবার গৌরীপুর স্টেশনের টিকিট কাউন্টারে যান মোখলেছুর রহমান। ওই সময় টিকিট কাউন্টারে ছিলেন মনিরুজ্জামান বিপ্লব। টিকেটের নির্ধারিত মূল্য ৭৫ টাকা। যাত্রীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত মূল্য নেয়াকে কেন্দ্র করে মোখলেছ ও বিপ্লবের সঙ্গে বাগ্বিতণ্ডা শুরু হয়। একপর্যায়ে বিপ্লব ক্ষিপ্ত হয়ে বৃদ্ধ মোখলেছকে মারধর করেন। একপর্যায়ে কাউন্টারে থাকা স্টিলের স্কেল দিয়ে মোখলেছের মাথায় আঘাত করায় আহত ও রক্তাক্ত হন।

গৌরীপুর রেলওয়ে স্টেশনের স্টেশন মাস্টার আবদুর রশিদ বলেন, শুনেছি বেসরকারি ট্রেনের টিকিট কাউন্টারের সামনে একজন ট্রেন যাত্রীকে বিপ্লব মারধর করেছে। তবে বিপ্লব আমাদের রেলওয়ের কর্মচারী না। বিষয়টি রেলওয়ে ফাঁড়ির ইনচার্জকে জানিয়েছি।

ময়মনসিংহ রেলওয়ে থানার ওসি মো. মোশাররফ হোসেন বলেন, ট্রেনযাত্রীকে মারধরের ঘটনাটি আমরা শুনেছি। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। রেলওয়ে ময়মনসিংহ সার্কেলের সার্কেল ইন্সপেক্টর আবদুল মান্নান ফরাজী জানান, এ ঘটনার প্রেক্ষিতে গৌরীপুর রেলওয়ে ফাঁড়িতে তাৎক্ষণিক একজন এসআই পদায়ন করা হয়েছে। ট্রেনযাত্রীদের নিরাপত্তায় স্টেশনে নিরাপত্তাব্যবস্থাও জোরদারের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য যে, গৌরীপুর রেলস্টেশনে বখাটেদের প্রচন্ড উৎপাত রয়েছে। কোন ট্রেন স্টেশনে থামার সাথে সাথেই তারা হুড়মুড় করে কামড়ায় ঢুকে পড়ে, দড়জায় দাড়িয়ে থেকে যাত্রীদেরকে নাজেহাল করে। সুযোগ বুঝে মূল্যবান জিনিশ-পত্র নিয়ে সটকে পড়ে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন নারী যাত্রী জানান, এসব বখাটে ছেলেরা নারীদেরকেও উক্তত্ত করে। বিষয়টি প্রশাসনের নজরে আনার জন্য তিনি আবেদন জানিয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here